মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

দর্শনীয় স্থান

 

দর্শনীয় স্থান/স্থাপনাঃ

§  পায়রাবন্দ জমিদারঃমহিয়সী নারী বেগম রোকেয়ার জন্মভূমি পায়রাবন্দ ঐতিহ্যসিক স্থান হিসেবে গণ্য। এ পরগনার শেষ জমিদার জহির উদ্দিন মোহাম্মদ আবু আলী হয়দার সাহেবের অন্যতমা কন্যা বেগম রোকেয়া ১৮৮০ সালের ০৯ ডিসেম্বর জন্মগ্রহন করেন।

 

§  তনকা প্রাচীন মসজিদঃমিঠাপুকুর উপজেলার রানীপুকুর ও শুকুরেরহাট  এলাকার  মাঝামাঝি স্থানে পাকা সড়কের পূর্ব পার্শ্বে (১ কিঃমিঃ) লতিবপুর ইউনিয়নে তিনতলা হাটের মসজিদ টি অবস্থিত। এ মসজিদটি মুঘল স্থাপত্য কৌশল অবলম্বনে ব্রিটিশ আমলে নির্মিত হয়েছিলো বলে জানা যায়।

§  ফুলচৌকি মসজিদঃমসজিদ বির্তমান মিঠাপুকুর উপজেলা হতে শুকুরের হাটের প্রায় ২ মাইল পশ্চিম দিকে ফুলচৌকি নামক স্থানে অবস্থিত। সম্ভবতঃ এই গ্রামকে কেন্দ্র করে মসজিদের নামকরণ করা হয়েছে। মসজিদটি আয়তকার এবং প্রতিটি কোণায় গোলাকার কিউপলা যুক্ত স্তম্ভ রয়েছে। যার নিচের অংশ কলসাকৃতি। । মসজিদের সামনে খোলা অঙ্গন(সাহান) অনুচ্চ প্রাচীর বা বেস্টনী দ্বারা আবুত।  মসজিদের  প্রবেশ দ্বার পূর্বপাশ ঘেষে একটি পরিকল্পিত এলাকা এখন কবর স্থান হিসাবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। যদিও সেখানে একসময় শোভা পেত স্থাপত্য সৌকর্য মন্ডিত শোভিত ও সৌরভমুখরিত ‘‘ফুল বাগান’’ যা ফুলচৌকি গ্রামরেই অতীত ঐতিহ্যের কথা স্মরণ করিয়ে দেয়।

 

§  মিঠাপুকুর মসজিদঃপ্রাচীন মসজিদটি মিঠাপকুরউপজেলা সদর থেকে আধা মাইল উত্তর পশ্চিমে অবস্থিত। মসজিদটির আয়তাকার  তিনটি গোলাকার গুম্বুজ দ্বারা আচ্ছাদিত। উৎকীর্ণ লিপি পাঠাদ্ধার জানা যায় যে, হিজরী ১২২৬ মোতাবেক বঙ্গাব্দ ১২১৭ শুক্রবার এবং খ্রিঃ ১৮১১ সাল জনৈক শেখ মোয়াজ্জম এর প্র-পুত্র শেখ মুহাম্মদ আসিন পিতা শেখ সাবির কর্তৃক এ মসজিদটি নির্মিত হয়।

 

§  পর্যটন স্থান সমূহঃপায়রাবন্দ জমিদারবাড়ী, ফুলচৌকি জমিদারবাড়ী, ধাপ উদয়পুর রাজা ভব চন্দ্রের রাজবাড়ী, বলদীপুকুর ক্যাথলিক মিশন, তনকা মসজিদ, ফুলচৌকি মসজিদ, মিঠাপুকুর মসজিদ, মিঠাপুকুর পুকুর, শাল্টি গোপালপুর রাবার বাগান ও শালবাগান বেনুবন বৌদ্ধ বিহার, চানপুর জেতবন বৌদ্ধ বিহার এবং বর্তমান লহনী পায়রাচত্বর পর্যটন স্থান হিসাবে বিবেচিত হতে পারে।