মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

শঠিবাড়ী বহূমূখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়

  • সংক্ষিপ্ত বর্ণনা
  • প্রতিষ্ঠাকাল
  • ইতিহাস
  • প্রধান শিক্ষক/ অধ্যক্ষ
  • অন্যান্য শিক্ষকদের তালিকা
  • ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা (শ্রেণীভিত্তিক)
  • পাশের হার
  • বর্তমান পরিচালনা কমিটির তথ্য
  • বিগত ৫ বছরের সমাপনী/পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল
  • শিক্ষাবৃত্ত তথ্যসমুহ
  • অর্জন
  • ভবিষৎ পরিকল্পনা
  • ফটোগ্যালারী
  • যোগাযোগ
  • মেধাবী ছাত্রবৃন্দ

রংপুর জেলাধীন মিঠাপুকুর উপজেলার ১৪নং দুর্গাপুর ইউনিয়নের শঠিবাড়ী হরিপুর তথা বিশ্ব রোড সংলগ্ন শঠিবাড়ী বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়টি অবস্থিত। অত্র এলাকার শি্ক্ষানুরাগী ব্যক্তি যাঁদের মহৎপ্রচেষ্ঠায় বেশ কিছু জমি ও নগদ অর্থ দিয়ে ১৯৫৫ খ্রিষ্ঠান্দে প্রতিষ্ঠা করে অত্র বিদ্যালয়টি। প্রথম পর্যায়ে প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং পর্যায় ক্রমে নিম্নমাধ্যমিক অত:পর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মানবিক, বিজ্ঞান ও কৃষি বিজ্ঞান বিভাগ নিয়ে অদ্যাবধি শঠিবাড়ী বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় নামে বিদ্যালয়টি সুপরিচিতি লাভ করেছে।   

০৭-১২-১৯৫৫

রংপুর জেলাধীন মিঠাপুকুর উপজেলার ঘন বসতিপূর্ণ বৃহৎবানিজ্যিক এলাকা শঠিবাড়ী বাজারের প্রাণ কেন্দ্রে বিশ্ব রোড সংলগ্ন শঠিবাড়ী বহুমূখী উচচ বিদ্যালয়টি ১৯৫৫ খ্রিষ্টাব্দের ০৭ ডিসেম্বর আত্ম প্রকাশ ঘটে। হাটি হাটি পা-পা করে অত্র এলাকার শিক্ষানুরাগী ব্যক্তি তাঁএদর মহৎপ্রচেষ্টায় বর্তমান বিদ্যালয়টির ভৌত অবকাঠামো সহ ব্যাপক উন্নয়ন সাধন করেছেন। প্রতিষ্ঠাকালে মাত্র ২০-২৫ জন ছাত্র/ছাত্রী নিয়ে যাত্রা শুরু করলেও বর্তমানে এর ছাত্র/ছাত্রী সংখ্যা প্রায় (১,৬০০) এক হাহার ছয় শত জন। ০৫টি ক্লাসের মোট ১৫টি শাখা শ্রেণী নিয়ে ৩০ জন শিক্ষক কর্মচারী তাঁদের ব্যাপক প্রচেষ্টায় অত্র মিঠাপুকুর উপজেলার শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীট হিসাবে সু-পরিচিত লাভ করেছে। বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠা প্রধান শিক্ষক মরহুম বজলার রহমান। অত:পর বর্তমান অবসর প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জনাব মো: আব্দুল জলিল মিয়ার সুযোগ্য প্রশাসনিক দক্ষতায় পরপর ৪ বার বিদ্যালয়টি জেলার মধ্যে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করেছিল। বিশেষ করে ১৯৯৪ খ্রিষ্টাব্দের এস.এস.সি পরীক্ষায় রাজশাহী বোর্ডে সম্মিলিত মেধা তালিকায় ৮৮৯ নম্বর পেয়ে দ্বতীয় স্থান অধিকার করে মো: সায়েদ আলী তৎকালে বিদ্যালয়টির ভাবমূর্তি আরও অধিকতর সমুজ্জল করেছিল। সর্বোপরি বিদ্যালয়টি বর্তমানে একটি সুযোগ্য ব্যবস্থাপনা কমিটির নেতৃত্বে প্রধান শিক্ষক জনাব মো: মোছলেম উদ্দিন প্রধান সাহেব তাঁর নিরলস প্রচেষ্টার মাধ্যমে এর ঐতিহ্য উত্তরোত্তর বৃদ্ধি করার জন্য ব্যাপক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। 

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল
হরেন্দ্র নাথ ০১৭১০৭২২৮১১ satibarihigh@gmail.com

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল

৬ষ্ঠ=৩৭৭ জন, ৭ম =৩৫০ জন, ৮ম=৩৫৩ জন, ৯ম=৩১০জন, দশম=২৪৫জন

৯১.১৯

 

নাম

ক্যাটাগরী

পদবী

জনাব মো: জাকির হোসেন সরকার

সমাজ সেবক

সভাপতি

জনাব বাবু অরুণ কুমার রায়

দাতা

সদস্য

জনাব মো: আফজাল হোসেন প্রধান

অভিভাবক

সদস্য

জনাব মো: জাহাঙ্গীর আলম প্রধান

অভিভাবক

সদস্য

জনাব মো: মোজাহেদুল ইসলাম

অভিভাবক

সদস্য

জনাব মো: তাজরুল ইসলাম

অভিভাবক

সদস্য

জনাব মোছা: নাজমীন আরা (শিল্পী)

মহিলা অভিভাবক

সদস্য

জনাব বাবু হরেন্দ্রনাথ সাহা

শিক্ষক প্রতিনিধি

সদস্য

জনাব মো: মোস্তাফিজার রহমান

শিক্ষক প্রতিনিধি

সদস্য

জনাব রত্না রাণী সরকার

মহিলা শিক্ষক প্রতিনিধি

সদস্য

প্রধান শিক্ষক শঠিবাড়ী বহুমূখী উচ্চ বিদ্যা:

পদাধিকার বলে

সম্পাদক

এস.এস.সি

২০০৭ সালে পরীক্ষার্থী ১৯৯জন মোট পাশের সংখ্যা ১০২জন পাশের হার ৫১.২৬%।

২০০৮ সালে পরীক্ষার্থী ১১৭৫জন মোট পাশের সংখ্যা ১৪৫জন পাশের হার ৮৩%।

২০০৯ সালে পরীক্ষার্থী ২৪৮ জন মোট পাশের সংখ্যা ১১৯০জন পাশের হার ৭৬.৫৬%।

২০১০ সালে পরীক্ষার্থী ২৫০জন মোট পাশের সংখ্যা ২০২জন পাশের হার ৮১%।

২০১১ সালে পরীক্ষার্থী ২৭৮জন মোট পাশের সংখ্যা ২৫৩জন পাশের হার ৯১.১২৯%

২০১৫ সালের এস এস সি পরিক্ষার 

 

২০০৭ সালে পরীক্ষার্থী ৪৪জন মোট বৃত্তিপ্রাপ্ত ১০জন, মেধাকৃত ০৩জন সাধারণ ০৭জন

২০০৮ সালে পরীক্ষার্থী ৬৪জন মোট বৃত্তিপ্রাপ্ত ২২জন মেধাকৃত ০৯জন সাধারণ ১৩জন

২০০৯ সালে পরীক্ষার্থী ৬৫জন মোট বৃত্তিপ্রাপ্ত ০৮জন মেধাকৃত ০২জন সাধারণ ০৬জন

জে.এস.সি-

২০১০ সালে পরীক্ষার্থী ২২১জন মোট বৃত্তিপ্রাপ্ত ১৯ জন মেধাকৃত ০৭জন সাধারণ ১২জন

ইতোমধ্যে বিদ্যালয়টির অনেক সুখ্যাতি অর্জন হয়ছে। বিশেষ করে ১৯৯৪ খ্রিষ্টাব্দে অনুষ্ঠিত এস.এস.সি পরীক্ষায় রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডর সিম্মিলত মধাতালিকায় ৮৮৯ নম্বর পেয়ে মো: সায়েদ আলী দ্বতীয় স্থান অধিকার করায় রাষ্ট্রপতি সম্মাননায় ভূষিত হয়েছিল। প্রতি বছর এস.এস.সি পরীক্ষার ফলাফলে উপজেলায় শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করেছে। এছাড়াও ৮ম শ্রেণীর বৃত্তি পরীক্ষায় এবং জে.এস.সি পরীক্ষায় ফলাফলে বরাবরই অত্র উপজেলায় শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করে আসছে। বিগত ২০১১ খ্রিষ্টাব্দের জে.এস.সি পরীক্ষায় ২৮৩ জন ছাত্র/ছাত্রী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে শতভাগ পাশ সহ রংপুর জেলায় ৭ম স্থান অধিকার করে ব্যাপক সুনাম অর্জন সহ এর অগ্রযাত্রা অব্যাহত রয়েছে।

ইতোমধ্যে ভবিষ্যতে বিদ্যালয়টির ব্যাপক উন্নয়ন পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। কারিগরি শিক্ষা ও বানিজ্যক বিভাগ খোলার পরিকল্পনা রয়েছে। বিদ্যালয়ে অধিক সংখ্যক ছাত্র/ছাত্রী ভর্তি হওয়ার ভবিষ্যতে দ্বিতীয় শিফড চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে। দূর-দূরান্ত থেকে আসা ছাত্র/ছাত্রীদের অআসাবিক ব্যবস্থা করার জন্য সক্রিয় চিন্তা ভাবনা রয়েছে। ছাত্র/ছাত্রীদের মানসিক ও সুপ্ত প্রতিভা বিকাশের জন্য একটি অত্যাধুনিক অত্যাধুনিক মিলনায়তন হল রুম করার চিন্তা ভাবনা রয়েছ। ছাত্র/ছাত্রীদের টিফিন দেয়ার চিন্তা ভাবনা রয়েছে। ছাত্র/ছাত্রীদের বিজ্ঞান মনস্ক ও অআধুনিক প্রযুক্তিতে মেধা বিকাশের জন্য প্রতি শ্রেণীএত মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টরের মাধ্যমে পাঠদানের পরিকল্পনা রয়েছে। সর্বোপরি একটি যুগপোযোগী ডিজিটাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার জন্য যথাসাধ্য প্রচেষ্ঠা অব্যাহত থাকবে।

 

রংপুর- ঢাকা মহাসড়ক সংলগ্ন ।